মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়?

ভাবছেন মেহেদি পাতা নিয়ে কোনো গবেষণা করছি কিনা! ভ্রান্তি দূর করার জন্য বলছি এটি একটি কবিতার লাইন| লেখক এখানে মেহেদি পাতার বর্ণনা করেছেন এভাবে,”উপরে সবুজ, ভেতরে রক্তাক্ত ক্ষত-বিক্ষত-“! জানিনা কেন,তবু আমাদের দেশের পথশিশুদের সাথে এই মেহেদি পাতার মিল আমি দেখি| ওরাও যেনো ঠিক তেমনই- “উপরে সবুজ, ভেতরে রক্তাক্ত ক্ষত-বিক্ষত-“!!!!………

 

কঠিন জীবন যাপন করে চলেছে এরা প্রতি মুহুর্তে| তাদের স্বস্তিহীন জীবনে ঈদের আনন্দ কতটুকুই বা স্পর্শ করে! ওদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগ করে নিতে কমিউনিটিঅ্যাকশন এর অ্যাকশন: মেহেদি ম্যাজিক এ অংশগ্রহন করলাম| মেহেদির রঙে রাঙিয়ে দিলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে থাকা সব শিশুর সত্তা. . . .

২৮ তারিখ টিএসসিতে ১৫ জন অ্যাকশনিয়ার এর স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে শুরু হলো মেহেদি ম্যাজিক| সে এক বিরাট উৎসব!!! কারও হাতে ফুটে উঠছে স্বর্ণলতা ফুল। কারও হাতে বাংলার চিরায়ত আল্পনা। ফুলের চিত্রগুলো হাতে হাতে ছড়াচ্ছে মুগ্ধতা। বাচ্চাদের আবদার পূরণ করতে থাকলাম আমরা| কেউ বলছে হাতে “ঈদ মোবারক” লিখতে, তো কেউ আবার চাইছে নিজের নাম লেখাতে| সন্তুষ্ট করতে যখন প্রাণপণ চেষ্টা করছিলাম তখন এক শিশুর মন্তব্য-“ধুর,আপার খালি হাত কাঁপে”!!!! যেন আমি একজন খেলোয়াড়, আর এইমাত্র একটা গোল মিস করে ফেললাম-এমন অনুভূতি হচ্ছিল!!!

টিএসসি তে অপ্রীতিকর ঘটনার মুখোমুখিও হলাম| বহিরাগত এক লোককে দেখলাম আমার টিমের অ্যাকশনিয়ারদের মডেল নির্বাচন করে মনের আনন্দে তাদের ছবি তুলছেন!!!! বাধা দিলাম| লক্ষ করলাম তিনি তার কাজের জন্য বিন্দুমাত্র লজ্জিত নন!…. ভালো কাজেও অনেক সময় সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়-এই অভিজ্ঞতার সাথে পরিচিত হলাম!

সন্ধ্যার আগে পর্যন্ত আমরা শিশুদের সাথে অদ্ভুত সুন্দর কিছু মুহুর্ত কাটালাম| একটা মজার ঘটনা না বললেই না| মেহেদি দেয়ার সময় এক শিশুর সাথে আমার কথোপকথন:-

-“আপা আমার হাতে দুইটা নাম লিখে দিবেন”

-“কার কার?”

-“আমার নাম সুমন”

-“আচ্ছা,আরেকজনের নাম কি?”

-“দাড়ান জিজ্ঞেস করে আসি” (পিচ্চি এক দৌড়ে কোথায় যেন গেল). . .

ফিরে আসার পর. . .

-“আপা,ওর নাম নিপা”!

এরপর আর কি! যোগচিহ্ন সহকারে তাদের নাম লিখে দিতে হলো!!!!!!……………

কখনই আমার হাতে মেহেদির রঙ ঠিক মত লাগেনা। মেহেদি পরতে জানি না আমি। সব সময় বন্ধুরা,বোন বা প্রতিবেশিরা পরিয়ে দেয়। এবারই কাওকে না পেয়ে নিজেই লাগালাম। আনাড়ির হাতের মেহেদি…না কোন ডিজাইন না কিছু।তারপর ও আমি খুশি…কি সুন্দর রঙ হয়েছে!!

About Kaniz Afroz Tanni

I am doing B.Pharm(Hons.) in University of Dhaka.
This entry was posted in Action: Mehndi Magic. Bookmark the permalink.

8 Responses to মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়?

  1. Hasan Tarek Akash says:

    very wellthought effort!!! appriciate it… :)

  2. Ami community Action er naam ta ebar e prothom shunlam. Hoyto ebar facebook e ank procharana peyeche….ebong anke shara diese…tai……Community ta ebar ramadan….ebong pre eid celebrtn moment ta street children der jonno shoronio korye rakhbye…….Facebook e chhobi gula dekhar por….ank ank beshi bhalo lagse….abong volunteer der ashonkho shubho kamona abong dhonnobad gapon kori tara eta shofol korty perese……jara volunteer sila…..hoyto tomader kauke chinio…tmdr shty kaj korty parley hoito khushi hoitam……ebong meye volunteer jara sile tomader abadan….anoshikarjo…..protikulotar majheo tomra…..dhaka shohore rashtay neme shihuder ank kase giye tader jonno kisu koreso…………….Community Action er proti ebong shob actionner der proti roilo ank vhalobasha abong shroddha

    Raiyan Mursal
    Bangladesh Medical College

  3. Zeeba Zahra Sultana says:

    পড়ে অসম্ভব ভালো লাগলো :) well done!

  4. Khadija Islam Rifat says:

    supreb..:p …..tmr lekhata pore abong comment gulo pore onno rokom feelings hoche……mone hoche ki jani ki kore felsii…..bt eta to kebol suru …..amader aro onek kishu korte hobe….onek dur jete hobe…………………….:)

  5. tamanna tabassum says:

    i felt lucky to join “action mehdi” of tikatuly zone…it was such an wonderful experience to see the lovely smile and true joy of those kids…it was really wonderful!

  6. Pingback: মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়? « Kaniz Afroz

  7. Pingback: মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়? « Kaniz Afroz

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *